মন্দির

কেদারনাথ মন্দির সম্পর্কে ১০টি অজানা তথ্য

সনাতন ধর্মানুসারীদের নিকট অত্যন্ত পবিত্র তীর্থস্থান কেদারনাথ মন্দির। সনাতন পন্ডিতের আজকের আয়োজন থেকে চলুন জেনে নিই কেদারনাথ মন্দির সম্পর্কে ১০টি অজানা তথ্য। চলুন তবে বিস্তারিত দেখে নেয়া যাক-

১. কেদারনাথ মন্দির ভারতের উত্তরাখণ্ড রাজ্যের গাড়োয়াল হিমালয় পর্বতশ্রেণিতে অবস্থিত কেদারনাথ শহরে অবস্থিত একটি শিব মন্দির।

২. এই মন্দিরটি মন্দাকিনী নদীর তীরে অবস্থিত।

৩. তীব্র শীতের কারণে এই মন্দিরটি বছরের বেশীরভাগ সময় বন্ধ থাকে। বৈশাখ মাসে অক্ষয় তৃতীয়া থেকে কার্তিক পূর্ণিমা অবধি এই মন্দির দর্শণার্থীদের জন্য খোলা থাকে।

আরো পড়ুনঃ তামিলনাড়ুর এই দেবতার দর্শন পেতে আপনাকে অপেক্ষা করতে হবে ৪০ বছর

কেদারনাথ
শীতকালে বরফে আবৃত কেদারনাথ মন্দির

৪. শীতকালে কেদারনাথ মন্দিরের দেব বিগ্রহকে ছয় মাসের জন্য রুদ্রপ্রয়াগের উখিমঠে নিয়ে যাওয়া হয় ও এবং সেখানে পূজা করা হয়।

৫. এই অঞ্চলের প্রাচীন নাম ছিল কেদারখন্ড। তাই ভগবান শিবকে এখানে কেদারনাথ নামে পূজা করা হয়। কেদারনাথ মানে কেদারখণ্ডের অধিপতি।

৬. কেদারনাথ মন্দিরটি খ্রিস্টীয় ৬ষ্ঠ-৯ম শতাব্দীর নায়ানার তামিল সন্তদের দ্বারা পাডল পেত্রা স্থলম বা মহাদেশের ২৭৫টি অতি পবিত্র শিবক্ষেত্র হিসেবে প্রশংসিত হয়েছে।

৭. এই মন্দির দ্বাদশ জ্যোতির্লিঙ্গ ও চারধাম তীর্থভূমির মধ্যে অন্যতম।

আরো পড়ুনঃ কারুকার্যময় হিন্দু স্থাপত্য শৈলীর অপরূপ নিদর্শন বাংলাদেশের কাদিপুর শিববাড়ি

৮. মন্দিরের গর্ভগৃহে পূজিত শিবলিঙ্গের আকার অনেকটা ত্রিকোণা।

৯. প্রচলিত বিশ্বাস অনুযায়ী, কেদারনাথ মন্দির বানিয়েছিলেন স্বয়ং পঞ্চপাণ্ডব। বেদব্যাসের পরামর্শে কুরুক্ষেত্র যুদ্ধে পাপমুক্তির উদ্দেশ্যে এই মন্দির নির্মাণ করা হয়েছিল বলে ধারণা করা হয়। পরবর্তীকালে খ্রিস্টীয় অষ্টম শতকে আদিগুরু শঙ্করাচার্য এই মন্দির পুনঃনির্মাণ করেছিলেন।

১০. কেদারনাথ কোণ নির্দিষ্ট মন্দির নয়। এটি মন্দিরের সিরিজ। ৫টি মন্দিরকে একসঙ্গে বলা হয় পঞ্চকেদার। এই মন্দিরের প্রধান পূজারীকে বলা হয় রাওয়াল।

আরো পড়ুনঃ ইতালি থেকে মেক্সিকো, পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে রামায়ণ ও রামের অস্তিত্ব

Leave a Reply

Back to top button
close
error: Content is protected !!