মন্দির

বিশ্বের সর্বাধিক মুসলিম জনসংখ্যার দেশ ইন্দোনেশিয়ায় দেবী সরস্বতীর সুদৃশ্য মন্দির!

বাঙালী হিন্দু ধর্মানুসারীদের নিকট বহুল পূজিত দেব-দেবীদের মধ্যে অন্যতম মা সরস্বতী। বসন্ত পঞ্চমীতে বাংলার ঘরে ঘরে পূজিত হন দেবী সরস্বতী। সমগ্র ভারতবর্ষে বিভিন্ন দেব-দেবীর অসংখ্য মন্দির থাকলেও, দেবী সরস্বতীর মন্দির নেই বললেই চলে। অথচ ভারতবর্ষ থেকে অনেক দূরের দেশ ইন্দোনেশিয়ায় রয়েছে দেবী সরস্বতীর সুদৃশ্য মন্দির। বিদেশী পর্যটকদের আকর্ষণ তো বটেই, ওই জনপদের ল্যান্ডমার্কই হচ্ছে এই মন্দির।

প্রাচীনকালে ইন্দোনেশিয়ার বালি-সুমাত্রা-জাভা দ্বীপ ভারতবর্ষের অংশ ছিল। হিন্দু রাজারা দাপটের সঙ্গে রাজত্ব করে গেছেন এসব দ্বীপরাষ্ট্রে | আজ সব মিলেমিশে হয়ে গেছে ইন্দোনেশিয়া। দেশটির নাম এবং সংস্কৃতিতেও লুকিয়ে আছে ভারতীয় শিকড়।

আরো পড়ুনঃ পুরীর জগন্নাথ মন্দিরে কেন জগন্নাথ দেবের হাত নেই?

ইন্দোনেশিয়া বর্তমানে বিশ্বের সবচেয়ে বেশী ইসলাম ধর্মানুসারীদের দেশ। হিন্দু ধর্মাবলম্বী মানুষ মাত্র ৩ % । কিন্তু এই দেশেরই বালি প্রদেশে রয়েছে কয়েক লক্ষ হিন্দু, যারা ইন্দোনেশিয়ার সামাজিক-রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন। বালি ছাড়াও সমগ্র ইন্দোনেশিয়াজুড়ে এখনও বিদ্যা-শিক্ষা-সংস্কৃতির দেবী সরস্বতীকে সম্মান করা হয়।

ইন্দোনেশিয়ায় সরস্বতী মন্দির
পুরা তামান কেমুদা সরস্বতী

বালি দ্বীপের উবুদে রয়েছে একটি সুদৃশ্য সরস্বতী মন্দির। এই মন্দিরটির নাম পুরা তামান কেমুদা সরস্বতী। ১৯৫১ সালে এই মন্দিরটির নির্মাণকাজ শুরু হয় এবং কাজ শেষ হয় ১৯৫২ সালে। ইন্দোনেশিয়ার বিখ্যাত ভাস্কর গুস্তি নেওমন লেম্পাদ এই মন্দিরটির ডিজাইন করেছিলেন। এই মন্দিরে রয়েছে দেবী সরস্বতীর আকর্ষণীয় মূর্তি। এছাড়া এই মন্দিরের পদ্মসরোবর এবং জল-বাগিচা অত্যন্ত মনোমুগ্ধকর। পুরো মন্দির প্রাঙ্গণে হিন্দু পুরাণের বিভিন্ন চরিত্রকে ভাস্কর্য আকারে স্থাপন করা হয়েছে।

আরো পড়ুনঃ জেনে নিন ২০২০ সালের সকল পূর্ণিমার সঠিক তিথি ও সময়সূচী

আমেরিকার রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতে ইন্দোনেশিয়ান দূতাবাসের সামনে স্থাপিত সরস্বতী মন্দির
আমেরিকার রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতে ইন্দোনেশিয়ান দূতাবাসের সামনে স্থাপিত সরস্বতী মন্দির

একটা বিষয় লক্ষণীয় যে, মুসলিম প্রধান দেশ ইন্দোনেশিয়া, তাদের হিন্দু ইতিহাসের প্রতি বেশ শ্রদ্ধাশীল এবং হিন্দু সংস্কৃতির প্রতি সংবেদনশীল। প্রসঙ্গত বিশ্বের উচ্চতম দণ্ডায়মান সরস্বতীর মূর্তিও বানিয়েছে ইন্দোনেশিয়াই | ১৬ ফিট লম্বা ওই মূর্তি আছে আমেরিকার রাজধানী ওয়াশিংটন ডি.সি-তে | সেখানে ইন্দোনেশিয়ার দূতাবাসের কাছেই প্রস্ফুটিত পদ্মের উপরে পেখম মেলা রাজহাঁসের উপরে দাঁড়িয়ে আছেন বিদ্যার দেবী | দেবীর পায়ের কাছে পাঠরত শিশুরা। ২০১৩ সালে ইন্দোনেশিয়া এই মূর্তিটি তৈরী করে আমেরিকায় তাদের দূতাবাসের সামনে।

আরো পড়ুনঃ আচার্য স্বামীর অনুপস্থিতিতে তাঁর শিষ্যের সঙ্গে মিলিত হতে চাইলেন ঋতুমতী গুরুপত্নী!

Leave a Reply

Back to top button
close
error: Content is protected !!